আনজুমানে রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নীয়া ওলামেয়া একরামের সহিত চসিক প্রশাসকের বৈঠক-Babngla Khobor

এইচ.এম.ফরিদুল আলম আশরাফী
আন্তর্জাতিক রিপোর্টার

চট্টগ্রামের উন্নয়নে অন্যায় বাঁধা বিপত্তি এলে তা কিছুতেই গ্রাহ্য হবে না। সড়ক সংস্কার ও সম্প্রসারণ উদ্যোগকে ব্যর্থ করতে মহল বিশেষ রাজনৈতিক কুমতলব এবং অসৎ উদ্দেশ্যে নানান বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে।
এমনকি পবিত্র ধর্মানুভূতিকে ইস্যু করা হচ্ছে। আমি স্পষ্ট করে বলতে চাই, আমি কখনো ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের স্থাপনা অমর্যাদা করতে চাই না , করিও নি এবং করবোও না।
বৃহস্পতিবার ষোলশহরস্থ আনজুমানে রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নীয়া ট্রাস্টের সেক্রেটারী, জামেয়া আহমদিয়ার সুন্নীয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ও গাউছিয়া কমিটিসহ ওলামেয়া একরামের সাথে মাদ্রাসার অধ্যক্ষের কক্ষে সৌজন্য সাক্ষাত কালে এসব কথা বলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রসাশক মোহাম্মদ খোরশেদ আলম সুজন।
তিনি আরো বলেন পাহাড়তলী সরাইপাড়াস্থ পি,সি রোডের সম্প্রসারণ ও সংস্কার করতে গিয়ে একটি মাজার ভেঙ্গে যে বির্তক উঠেছে তা খতিয়ে দেখার জন্য ওলামা একরামদের নিয়ে ৬ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে দিয়েছি। এই কমিটি সরেজমিনে তদন্ত করবে এবং স্থানীয় পঞ্চাশোর্ধ ব্যক্তিদের সাথে কথা বলে জানবে আদৌ এখানে কোন মাজার ছিল কিনা।
কমিটির প্রতিবেদন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। কমিটি শনিবার থেকে কাজ শুরু করে দ্রুততম সময়ের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দেবেন।
কমিটিতে আছেন কাজী মোহাম্মদ আবদুল ওয়াজেদ, আল্লামা আশরাফুজ্জামান আলক্বাদেরী, এডভোকেট মেজবাহ উদ্দিন বখতেয়ার, আলহাজ্ব স.উ.ম আবদুস সামাদ,চসিক এর পক্ষে মাওলানা মুহাম্মদ হারুনুর রশিদ চৌধুরী ও চসিকের সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলী।
এসময় উপস্থিত ছিলেন প্রশাসকের একান্ত সচিব মোহাম্মদ আবুল হাশেম, আনজুমানে রহমানিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্ট এর সিনিয়র সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মুহাম্মদ মহসিন, জেনারেল সেক্রেটারী আলহাজ্ব মুহাম্মদ আনোয়ার হোসাইন, গাউছিয়া কমিটি বাংলাদেশএর চেয়ারম্যান সাবেক কাউন্সিলর আলহাজ্ব পেয়ার মুহাম্মদ, জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ আলহাজ্ব সৈয়দ মুহাম্মদ অছিয়র রহমান, ফক্হি আল্লামা কাজী মোহাম্মদ আবদুল ওয়াজেদ, মুফাসসির আল্লামা কাজী মুহাম্মদ ছালেকুর রহমান আলক্বাদেরী, মুহাদ্দিস আল্লামা আশরাফুজ্জামান আলক্বাদেরী,প্রভাষক মাওলানা গোলাম মোস্তফা মুহাম্মদ নুরুন্নবী, মাওলানা মুহাম্মদ ইলিয়াছ আলক্বাদেরী, মুহাম্মদ আনিসুজ্জামান, মাওলানা আবুল আসাদ মুহাম্মদ জোবাইর রজভী, মাওলানা মুহাম্মদ জিয়াউল হক, মাওলানা মুহাম্মদ জামাল উদ্দিন, মাওলানা মুহাম্মদ নঈমুল হক, গাউছিয়া কমিটি বাংলাদেশ এর যুগ্ম মহাসচিব আলহাজ্ব মুহাম্মদ মোসাহেব উদ্দিন বখতেয়ার, বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট এর যুগ্ম মহাসচিব আলহাজ্ব স.উ.ম আবদুস সামাদ ও চসিক মাদ্রাসা পরিদর্শক মাওলানা মুহাম্মদ হারুনুর রশিদ চৌধুরীসহ প্রমূখ ।
জামেয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ প্রশাসক মহোদয়কে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, একজন ধর্মপ্রান মানুষ হিসেবে নগরীর ধর্মীয় স্থাপনাগুলো বিশেষ করে মাজার,মসজিদ সংরক্ষণের আহবান জানান। তিনি ঈদে মিলাদুন্নবী স্বাস্থ্য বিধি মেনে পালনে সহযোগিতা কামনা করেন।