লালপুরে খুন হওয়া অজ্ঞাত মহিলার মরদেহের পরিচয় উদ্ধার, খুনি গ্রেপ্তার

পিন্টু স্যার বিশেষ প্রতিনিধি

গত ৭ অক্টোবর লালপুরে একটি লিচুবাগান থেকে উদ্ধার হওয়া এক অজ্ঞাত মহিলার মরদেহের পরিচয় সনাক্ত করা গেছে। শুধু পরিচয় শনাক্ত নয় জেলা পুলিশের দাবি, সেই মহিলাকে খুন করা হয়েছিল এবং সেই খুনিকেও গ্রেফতার করেছে তারা।

আজ দুপুরে পুলিশ সুপার কার্যালয় এর সামনে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা। প্রেস রিলিজ যা জানানো হয় তা হুবহু তুলে ধরা হলো।

প্রেস রিলিস

অজ্ঞাতনামা লাশ, হাজারো মানুষ তাকে চিনতে পারেনি, প্রযুক্তির সহায়তায় ৪৮ ঘন্টা পর লাশ সনাক্তকরণ অতঃপর আসামী গ্রেফতার

গত ০৭-১০-২০২০ খ্রি. নাটোর জেলার লালপুর থানাধীন অর্জনপুর বরমহাটি ইউনিয়নের ডহরশৈলা গ্রামস্থ ডহরশৈলা মাদ্রাসার পূর্বপাশে ডহরশৈলা হতে শ্রীরামগাড়ী রেলগেইটগামী পাকা রাস্তার দক্ষিণ পাশে জনৈক মোঃ আফজাল মন্ডল এর লিচু বাগানের ভিতর অনুমান ৩৫ বছরের একটি মহিলার লাশ পড়ে আছে মর্মে লালপুর থানা পুলিশ সংবাদ পান।

উক্ত সংবাদের প্রেক্ষিতে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। ঘটনাস্থলে উপস্থিত হাজারো মানুষ তাকে চিনতে পারলো না। ভিকটিমের ছবি, আঙ্গুলের ছাপ সংরক্ষণ করা হলো।

এ সংক্রান্তে লালপুর থানার মামলা নং-০৮, তারিখ-০৭-১০-২০২০ খ্রি., ধারা-৩০২/২০১/৩৪ পেনাল কোড রুজু করা হয়।

মৃতদেহ পোস্ট মর্টামের পরেও ৪৮ ঘন্টা রাখা হলো বরফ দিয়ে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে ভিকটিমের পরিচয়ের জন্য প্রচারণা করা হলো। তারপরও লাশ সনাক্ত না হওয়ায় নাটোর পৌর মেয়রের মাধ্যমে তাকে বেওয়ারিশ হিসেবে দাফন করা হলো।

প্রাথমিকভাবে এনআইডি সফট্ওয়্যারের মাধ্যমেও তার পরিচয় মিলছিলো না। পরবর্তীতে সিআইডি এবং এনআইডি সফট্ওয়্যারের উপুর্যপরি অনুরোধের মাধ্যমে মিললো ভিকটিমের পরিচয়।

মামলার রহস্য উদ্ঘাটন ও ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের জন্য লালপুর থানার ০২ টি টীম এবং জেলার সমন্বয়ে আরও ০২ টি টীম সর্বমোট ০৪ টি টীম কাজ করে।

আধুনিক প্রযুক্তির সহায়তায় গত ১৩-১০-২০২০ খ্রি. সময় ভোর ০৩.৪৫ ঘটিকায় সন্ধিগ্ধ আসামী মোঃ টুটুল আলী (২৫), পিতা-মোঃ মানিক আলী, গ্রাম-আড়বাব মধ্যপাড়া, থানা-লালুপর, জেলা-নাটোরকে মাগুড়া জেলার সদর থানাধীন শিমুলের ঢাল নামক স্থানে নির্মাণাধীন ভবনের লেবারের শেড হতে গ্রেফতার করা হয়।